Pizza (2014) মুভি ইন্ডিং এক্সপ্লেইন্ড।

MLWBD October 6, 2018 Views 359

#Pizza মুভি ইন্ডিং এক্সপ্লেনেশন! 😍

প্রথমেই বলবো আপনি এই Pizza মুভির কয়েকটি রিমেক পাবেন বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিতে। যেকোন একটি মুভি দেখুন। সবগুলোর স্টোরী সেম। মুভি না দেখে এক্সপ্লেনেশন না পড়াই উত্তম। নাহলে মুভি দেখে অতটা ভাল নাও লাগতে পারে। আমি সাজেস্ট করবো বলিউডের টি দেখুন। #MLWBD .com এ ২০১৪ সালে রিলিজ হয়া Pizza মুভিটি ব্লুরে প্রিন্টে ছোট এবং বড় সাইজে পাবেন ✌

২০১২ সালের সাউথে রিলিজ হয়া Pizza মুভিটি তেলুগু , হিন্দি , কান্নাড় এবং বেঙ্গলী সহ বিভিন্ন ভাষাতেই রিমেক হয়েছে। সবগুলো রিমেক ই ভাল ছিল। তাছাড়া অরিজিনাল ভারশন ও বেশ প্রশংশনীয়। এদিকে বলিউডের হিন্দি ভারশন ও যথেষ্ট ভাল ছিল। কিন্তু মুভির ইন্ডিং দেখে অনেকেই কিছুটা ঘাবড়েছেন। মুভির ইন্ডিং দিয়ে কি বুঝানো হয়েছে বা কিসের ইঙ্গিত দিয়েছে , তা আদৌ অনেকের কাছে ক্লিয়ার নয়। চলুন , আজ সে ব্যাপারে এক্সপ্লেইন করা যাক।

●► ফিনিসিং টা কিছুটা এরকম : মুভিতে টুইস্ট দেখানো হয় যে সব কিছুই বানানো নাটক ছিল। এটুকু তো খোলাসা করেই দেয়া হয়েছে। কিন্তু একদম শেষাংশে দেখানো হয়েছে “অভিনেতা কোন বাসায় যায় আর তার সাথে এবার সত্যি সত্যি বানানো নাটকের মত ঘটনা ঘটল। সে কোন এক ঘরে পিজ্বা ডেলিভার করতে গেল আর আচমকা সে ঘরের দড়জা বন্ধ হয়ে গেল। আটকে গেল সেই বাড়িতে” এর মিনিং কি ছিল? অনেকেই কনফিউজড!

অনেকেই ভাবেন যে মুভির স্যিকুয়াল বের হবে হয়ত। অনেকেই ভাবেন সে সবকিছু বানিয়ে বানিয়ে মিথ্যে বলাতে তার সাথে সত্যি সত্যিই ঘটছে সব এবার। আসলেই কি আপনার ধারনা সঠিক?

নাহ! ভুল। তার যথেষ্ট কারণ ও রয়েছে। বিস্তারিত বলে দিচ্ছি।

১। প্রথমত এটি একটি অপেন ইন্ডেড মুভি। মুভির ডিরেক্টর/রাইটার মুভির ফিনিসিং আনসল্ভড রেখে দেয় পাবলিক ক্রিটিসিজ্যাম পেতে। যাতে পাবলিক এই মুভি নিয়ে আলোচনা করে। পাবলিসিটি যাকে বলে। আচ্ছা , একটু গভীরভাবে চিন্তা করি আমরা। এই মুভির ফিনিসিং দিয়ে পরবর্তী স্যিকুয়াল এর কোন টার্গেট নেই। কমার্সিয়াল ফিল্ম ভাই। তার উপর অপেন ইন্ডেড। এটা নিয়ে দ্বিতীয় স্যিকুয়ালের মানে হয় না। আনসল্ভড ইন্ডিং এর মানে এই নয় যে এর স্যিকুয়াল বের হবে সেই আনসল্ভড স্টোরীর উপর।

২। সে সবকিছু মিথ্যে মিথ্যে বানিয়ে বলাতে তার সাথে সেসব সত্যিই ঘটছিল কি?

– একদম ই নয়। ভুল ধারনা আপনার।

– আপনি প্রথমেই ভেবে দেখুন যে এটা কোন হরর ফিল্ম কিনা বা মুভিতে ভূত প্রেত আছে কি না। কিছুই কিন্তু নেই। কারণ মুভিতে সব বানানো নাটক ছিল। তাই স্যুপারন্যাচারাল কিছু থাকার প্রশ্নই আসেনা। অতএব , ভুলে যান যে মুভির শেষে যা দেখানো হয়েছে তা সত্য সত্য হয়েছিল বা মুভিতে হরর বা স্যুপারন্যাচারাল কিছু ঘটেছিল।

এবার আসি আসল কথায়। সব যদি মিথ্যে হয় তাহলে শেষে ঘটেছিল টা কি? কি বুঝানী হল সেটার?

→ মূলত ওটা একটা ইঙ্গিত ছিল সেকেন্ড লুপ এর। মানে অভিনেতা ও অভিনেত্রী একই কাজ আবারো করছিল :p সেম টাইপের ইনসিডেন্ট দেখানোর মানে এই যে তারা একই প্লান অন্য কোন পিজ্বা ডেলিভারীতে কাজে লাগিয়েছে অন্য কারও শপে। ওটা না কোন স্যিকুয়ালের লক্ষণ , না কোন সত্য সত্য ভূতের কিছু। তারা সেম কাজ আবারো করছিল অন্য কারো সাথে। তার উদাহরন ই ওই শেষের সীনটুকু।

অপেন ইন্ডেড মুভি। যেকেউ যেকোনভাবে ধারনা করে নিতে পারে। তবে যুক্তিগত ধারনাটিই প্রাধান্য পাবে 🙂

ধন্যবাদ! যদি পড়ে থাকেন 😍

Leave a comment

Name *
Add a display name
Email *
Your email address will not be published
Website